শনিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ব্রেকিং নিউজ
◈ রাঙ্গাবালীতে ভিটেবাড়ি ও কৃষি জমি রক্ষার দাবি পাঁচ পরিবারের ◈ রাঙ্গাবালীতে পল্লী বিদ্যুতের কাজে বাগড়া, সিন্ডিকেটের দাপট ◈ রাঙ্গাবালীতে পরকীয়ার জেরে মনির হত্যাকাণ্ড হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও ফাঁসি দাবি ◈ রাঙ্গাবালীতে ৩শ’ ফুট লম্বা কাঠের সেতু নির্মাণ ◈ রাঙ্গাবালীতে বঙ্গবন্ধুর ৪৬তম শাহাদাৎ বার্ষিকী পালিত ◈ ‘শিগগরই ঘরে ঘরে বিদ্যুতের আলো জ্বলবে’-এমপি মহিব ◈ রাঙ্গাবালীতে এক মাদক ব্যবসায়ী আটক ◈ রাঙ্গাবালীতে করোনাকালীন ক্ষতিগ্রস্থ পল্লী উদ্যোক্তাদের ঋণ প্রদান করছেন বিআরডিবি ◈ গলাচিপায় ইউনিয়ন পর্যায়ে গণ টিকাদান কার্যক্রম শুরু ◈ গলাচিপায় বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকী পালিত

শিশু ইয়াকুবকে বাঁচাতে বাবা-মায়ের আকুতি

প্রকাশিত : ০৪:৩৪ অপরাহ্ণ, ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২১ শুক্রবার 177 বার পঠিত

এম সোহেল প্রকাশক :


শিশু সন্তানকে বাঁচাতে নিজ এলাকার মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন মা। আর বাবাও চাইছেন সহায়তা। কিন্তু এভাবে তাদের পক্ষে সন্তানের চিকিৎসার টাকা সংগ্রহ সম্ভব হচ্ছে না। তাই যতই দিন যাচ্ছে, ওই শিশুর বেঁচে থাকার আশা ততই অনিশ্চয়তায় পড়ছে। ছোট্ট শিশু ইয়াকুব। বয়স মাত্র ছয় মাস। ছোট্ট শিশু ইয়াকুব। বয়স মাত্র ছয় মাস। এ বয়সে হেঁসে খেলে বাবা-মায়ের মুখের হাঁসি ফুঁটানোর কথা। কিন্তু তাদের সেই হাঁসি মলিন হয়ে গেছে, কঠিন ব্যাধিতে আক্রান্ত হয়ে। অসহ্য যন্ত্রণায় ছটফট করে দিন কাটছে শিশুটির।
পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার মৌডুবি ইউনিয়নের চদ্রিমাঝি গ্রামের দিনমজুর কামাল হাওলাদারের ছেলে ইয়াকুব। চার ভাই-বোনের মধ্যে ইয়াকুব সবার ছোট। পরিবার বলছে, মাসখানেক ধরে ইয়াকুব অযহ্য যন্ত্রণায় কাতর হয়ে ছিল। এক সপ্তাহ আগে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে কলাপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে ইয়াকুবের ধরা পড়ে রক্তশূণ্যতা, শ্বাসকষ্ট ও হৃদযন্ত্রের (হার্ট) পাশের হাড় ফাক হয়ে গেছে। সেখানকার কর্তব্যরত আবাসিক চিকিৎসক ডা. জে.এইচ খান লেলিন প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ইয়াকুবকে দ্রæত ঢাকা নিয়ে অপারেশন ও প্রয়োজনীয় চিকিৎসার পরামর্শ দিয়েছেন বলে জানায় শিশুটির বাবা-মা।
শিশুটির চিকিৎসার জন্য এখন কমপক্ষে এক লক্ষ টাকা প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক। কিন্তু অভাব-অনটনের সংসারে দারিদ্র্য বাবার পক্ষে এই টাকা জোগার করে ছেলের চিকিৎসা করানো সম্ভব নয়। তাই শিশু সন্তানকে বাঁচাতে নিজ এলাকার মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন মা। আর বাবাও চাইছেন সহায়তা। কিন্তু এভাবে তাদের পক্ষে সন্তানের চিকিৎসার টাকা সংগ্রহ সম্ভব হচ্ছে না। তাই যতই দিন যাচ্ছে, ওই শিশুর বেঁচে থাকার আশা ততই অনিশ্চয়তায় পড়ছে। শিশু ইয়াকুবের মা খাদিজা বেগম কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘আমার ছেলেকে বাচাইতে (বাঁচাতে) চাই। আমনেরা কেই (কেউ) যদি থাকেন (আপনারা) আমার ছেলেকে বাচাইতে সাহয্য করেন।’
এই মুহূর্তে সকলের সহযোগিতা হয়তো দিতে পারে শিশু ইয়াকুবের দীর্ঘজীবন। শিশুটিকে বাঁচাতে যে কেউ সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে পারেন। শিশু ইয়াকুবের বাবা কামাল হাওলাদারের সঙ্গে যোগাযোগের নম্বর: ০১৭৮৬৩৮৩৯৬৪।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দর্পণ বাংলা'কে জানাতে ই-মেইল করুন। আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দর্পণ বাংলা'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দর্পণ বাংলা | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি | Developed by UNIK BD