সর্বশেষ :

চিকিৎসকের কিল-ঘুষিতে রক্তাক্ত রোগীর বাবা!

অনলাইন ডেস্ক ১০:০০, ১৯ মে ২০১৯

পাবনার বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টিএইচ ও ডা. মিলন মাহমুদ কিল-ঘুষি দিয়ে এক রোগীর বাবাকে রক্তাক্ত করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। গত শুক্রবার বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ ঘটনা ঘটলেও গতকাল শনিবার ঘটনাটি জানাজানি হয়। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ ব্যাপারে বেড়া মডেল থানায় অভিযোগ করেছেন আহত সোনাই মোল্লা।

থানার অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার বিকেল ৫টার সময় বেড়া পৌর এলাকার মো. সোনাই মোল্লা তার অসুস্থ ছেলে মোস্তাকিনকে বাইসাইকেলযোগে বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। গেটের সামনে বাইসাইকেলটি রেখে তিনি ছেলেকে নিয়ে জরুরি বিভাগে যান। এ সময় ডা. মিলন মাহমুদ উত্তেজিত হয়ে  বাইসাইকেলটি লাথি মেরে ফেলে দেন এবং সোনাই মোল্লাকে গালমন্দ করেন। তাকে গালমন্দ করতে নিষেধ করা হলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে সোনাই মোল্লাকে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি মারেন। এতে তার বাঁ চোখ ও ঠোট ফেটে যায়। এ ছাড়া শরীরের নানাস্থানে জখম হয়।

আহত সোনাই মোল্লা বলেন, কিছু বোঝার আগেই আমাকে অহেতুক মারধর করা হয়। তারপর থেকে আমি সাঁথিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছি।

এ ব্যাপারে ডা. মিলন মাহমুদ আজ রবিবার দুপুর ১২টায় সংবাদ সম্মেলনে জানান, আমার সাথে তর্কবিতর্কের সময় ঘটনাস্থলে লোকজন জড়ো হলে কিছু লোকজনের সাথে সোনাই মোল্লার হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

বেড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিদ মাহমুদ বলেন, এ ব্যাপারে একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত স্বাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পাঠকের মন্তব্য

লাইভ

টপ