৩৮টি ডট বল কপাল পুড়ল বাংলাদেশের?

অনলাইন ডেস্ক ০৮:০০, ৮ নভেম্বর ২০১৯

ব্যাটিং উইকেটে ১২০ বলের খেলায় ৩৮টিই যদি ডট বল হয়, মানে এসব বল থেকে কোনো রান না আসে; তাহলে সেই দলের অবস্থা কী হতে পারে তা অনুমেয়। গতকাল বৃহস্পতিবার ভারতের বিপক্ষে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে করুণ পরিণতি হয়েছে বাংলাদেশের। দুর্দান্ত শুরুর পর মিডল অর্ডার ভেঙে পড়েছে। যেখানে দুইশর কাছাকাছি রান হওয়ার কথা, সেখানে হয়েছে মাত্র ১৫৩! বাংলাদেশের মিডল অর্ডার যে উইকেটে ধুঁকেছে, সেই উইকেটেই ঝড় বইয়ে দিয়েছেন রোহিত শর্মা।

অনেকেই হয়তো বলবেন, রোহিত শর্মার ও রকম বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ের পরে জেতার আশা না করাই ভালো। কিন্তু গলদটা যে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের তা অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহও স্বীকার করেছেন। নাঈম, লিটন, সৌম্যরা যেখানে দুর্দান্ত এক শুরু এনে দিল, সেখানে বাকী ব্যাটসম্যানরা যেন বলই দেখতে পারছিলেন না। মাহমুদউল্লাহ তাই বলেছেন, অতিরিক্ত ডট বল খেলার জন্যই রান তোলার গতি কমে যায় দলের। তার ফলে আরও বড় টার্গেট চাপানো সম্ভব হয়নি ভারতের উপরে। নাগপুরে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচের আগে এই ভুল কি সংশোধন করতে পারবে বাংলাদেশ?

বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় টি টোয়েন্টি ম্যাচে দুই ওপেনার লিটন দাস ও মোহাম্মদ নইম ওপেনিং জুটিতে ৬০ রান করেন। এই দুই ব্যাটসম্যান বড় রানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। ষষ্ঠ ওভারেই পঞ্চাশ তুলে ফেলেছিল বাংলাদেশ। সেই দলই নির্ধারিত ২০ ওভারের শেষে করে ১৫৩ রান। অথচ ১৭০-এর বেশি রান করতেই পারত বাংলাদেশ। ম্যাচের শেষে মাহমুদউল্লাহ বলেন, ‘টি টোয়েন্টি ম্যাচে ৪০-এর বেশি ডট বল খেললে জেতার আশা তখনই শেষ হয়ে যায়। আমরা ৩৮টি ডট বল খেলেছি। পরের ম্যাচে এদিকে নজর দিতে হবে।’

পাঠকের মন্তব্য

লাইভ

টপ